ইয়াসির শাহর ঘূর্ণি, ইনিংস ব্যবধানে হার নিউজিল্যান্ডের

খেলা
Share Button

দ্বিতীয় ইনিংসেও অব্যাহত ছিল ইয়াসির শাহর ঘূর্ণি জাদু। তার মায়াবী ঘূর্ণি জাদুর মোহ-মায়ায় জড়িয়ে অকাতরে উইকেট বিলিয়ে গেলেন নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। যার পলে দুবাই টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে পরাজয়ই ঘটলো নিউজিল্যান্ডের। আবুধাবি টেস্টের শেষ মুহূর্তে মাত্র ৪ রানের ব্যবধানে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে যাওয়ার দারুণ বদলা নিলো পাকিস্তান ইনিংস ও ১৬ রানের ব্যবধানে জয় তুলে নিয়ে।

প্রথম ইনিংসে পাকিস্তানের ৪১৮ রানে ইনিংস ঘোষণার জবাব দিতে নেমে ইয়াসির শাহের লেগ স্পিনের ঘূর্ণিতে বিভ্রান্ত হয়ে একের পর এক উইকেট হারাতে শুরু করে নিউজিল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। যার ফলে মাত্র ৯০ রানে অলআউট হয়ে যায় নিউজিল্যান্ড। ৪১ রান দিয়ে একাই ৮টি উইকেট নেন ইয়াসির শাহ। একটি হয় রানআউট এবং একটি উইকেট নেন হাসান আলি।

৩২৮ রানে পিছিয়ে পড়া মানেই ফলোঅন নিশ্চিত। পাকিস্তান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও ফলোঅন করালেন নিউজিল্যান্ডকে। ইনিংস পরাজয় এড়ানোর লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে অবশ্য বেশ দৃঢ়তার পরিচয় দেয় কিউই ব্যাটসম্যানরা।

জিত রাভাল ২ রান করে আউট হয়ে গেলেও টম ল্যাথাম আর কেন উইলিয়ামসন মিলে ৫৬ রানের জুটি গড়ে উইকেট পড়ার সয়লাবে কিছুটা বাধার সৃষ্টি করতে সক্ষম হন। কিন্তু ইয়াসির শাহের ঘূর্ণিতে পড়ে ৩০ রান করেই আউট হয়ে যান উইলিয়ামসন।

এরপর দারুণ একটি জুটি গড়ে তোলেন ল্যাথাম আর রস টেলর। এ দু’জনের ব্যাটে ৮০ রানের জুটি গড়ে ওঠে। নিউজিল্যান্ডও আশা দেখতে শুরু করে। কিন্তু ৫০ রান করে আউট হয়ে যান টম ল্যাথাম। এরপর জুটি বাধেন টেলর আর হেনরি নিকোলস। এ দু’জনের ব্যাটে ওঠে ৫২ রান। ১২৮ বলে ৮২ রান টেলর আউট হয়ে গেলে কিছুটা থমকে যায় কিউইদের আশা।

এরপরও লড়াই করেন হেনরি নিকোলস। ১৮৭ বল খেলে ৭৭ রান করেন তিনি। তার সঙ্গে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, ইস সোধি, নেইল ওয়াগনার এবং ট্রেন্ট বোল্টরা ছিলেন শুধু আসা-যাওয়ার মিছিলে। তবে ৮ম উইকেট হিসেবে নিকোলসকে হাসান আলি বোল্ড করার পরই মূলতঃ নিউজিল্যান্ডের ইনিংস পরাজয় নিশ্চিত হয়ে যায়।

শেষ পর্যন্ত দ্বিতীয় ইনিংসে নিউজিল্যান্ড অলআউট হলো ৩১২ রানে। পাকিস্তানের প্রথম ইনিংসে করা ৪১৮ রানের জবাবে দুই ইনিংস মিলে কিউদের অগ্রযাত্রা থামলো ১৬ রান দুরে থাকতে। দুই ইনিংস মিলে ১৪ (৮ + ৬) উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ডকে একাই হারিয়ে দিলেন ইয়াসির শাহ। দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেট নিয়েছেন হাসান আলি এবং ১ উইকেট নিয়েছেন বিলাল আসিফ।

খবরঃ জাগো নিউজ

Share Button